মেয়াদ উত্তীর্ণ কীটনাশক বিক্রির হিড়িক : ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা

মোঃ ফয়সাল হোসেন
করোনা ভাইরাস মহামারিতেও থেমে নেই অসাধু ব্যবসায়ীরা। অন্নযোগানদাতা কৃষকের কাছে মেয়াদ উত্তীর্ণ কীটনাশক বিক্রি করে হাতিয়ে নিচ্ছে টাকা। ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন গ্রামের সাধারন কৃষক। মঙ্গলবার সকালে মোহনপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ বিন কাসেম ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালিয়ে উপজেলার শ্যামপুরহাটে মেয়াদ উত্তীর্ণ কীটনাশক বিক্রি করার অপরাধে মেসার্স মোহসীন কৃষি ঘরের সত্ত্বাধিকারী মোহসীন আলীকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। পরে উপজেলার কেশরহাটে মেসার্স মাহবুব কৃষি বিপণীর স্বত্বাধিকারী মুখলেসুর রহমানকে ৭ হাজার টাকা, মেসার্স মফিজ কীটনাশক স্টোরের সত্ত্বাধিকারী মফিজ উদ্দিনকে ৭ হাজার টাকা, মেসার্স আমিনুল কীটনাশক স্টোরের সত্ত্বাধিকারী আমিনুল ইসলামকে ৭ হাজার টাকা, মেসার্স মুকবুল কীটনাশক এন্ড সিড বিপনীর স্বত্বাধিকারী মতিউর রহমানকে মেয়াদ উত্তীর্ণ কীটনাশক রাখার অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৭ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।
এ সময় মোহনপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদ বিন কাসেম বলেন, এসব মেয়াদ উত্তীর্ণ কীটনাশক ও নি¤œমানের বীজ বিক্রির ফলে সাধারণ কৃষকরা চরম ভাবে আর্থিক ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল মান্নান, ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ইকবাল কাসেম কেশরহাট ভূমি অফিস পুলিশের সঙ্গীয় ফোর্স।

একটি উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে