‘করোনা ট্রেসার বিডি’ অ্যাপ চালু

0

দেশজুড়ে করোনাভাইরাস সম্পর্কে সতর্কতা জানাতে স্মার্টফোনে পরীক্ষামূলকভাবে ‘করোনা ট্রেসার বিডি’ অ্যাপ চালু করেছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।

বৃহস্পতিবার (৫ জুন) এক অনলাইন প্ল্যাটফর্ম অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অ্যাপের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

‘করোনা ট্রেসার বিডি’ মূলত অ্যাপ প্রযুক্তি ব্যবহার করে স্বয়ংক্রিয়ভাবে দুজন ব্যবহারকারীর কাছাকাছি থাকার সময় এবং ব্যবহারকারীদের অবস্থান সুরক্ষিতভাবে সংরক্ষণ করে রাখবে। যখনই অন্য কোনো অ্যাপ ব্যবহারকারী একটি নির্দিষ্ট দূরত্বের মধ্যে আসবে তখনই অ্যাপ দুটি নিজেদের মধ্যে ‘ডিজিটাল হ্যান্ডশেক’ করে প্রয়োজনীয় তথ্য সুরক্ষিতভাবে বিনিময় করবে।

গুগল প্লে স্টোর থেকে ‘করোনা ট্রেসার বিডি’ অ্যাপটি ডাউনলোড করা যাবে। এছাড়া সরাসরি স্মার্টফোন থেকে (https://play.google.com/store/apps/details?id=com.shohoz.tracer) লিংকে ক্লিক করেও অ্যাপটি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

আইসিটি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে কথা বলেন এটুআই প্রোগ্রামের পলিসি এডভাইজার আনীর চৌধুরী, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ, আইইডিসিআর পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা, এটুআইয়ের প্রকল্প পরিচালক ড. আবদুল মান্নান, এলআইসিটি প্রকল্পের আইটি-আইটিইএস পলিসি এডভাইজার সামি আহমেদ এবং আইসিটি বিভাগ ও সংবাদমাধ্যম কর্মীরা।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রযুক্তিনির্ভর ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের অভিযাত্রায় আইসিটি অবকাঠামো ব্যবহার করে সমস্যা ও সংকট নিরসনে সরকার একের পর এক প্রযুক্তিভিত্তিক নানা সমাধান নিয়ে আসছে। করোনার প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় ‘করোনা ট্রেসার বিডি’ একটি জীবন সহায়ক অ্যাপ। যা জীবন ও জীবিকার সুরক্ষা দিতে সরাসরি ভূমিকা রাখবে।

ইতোমধ্যে সরকার কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য খাত এবং জরুরি খাদ্য সরবরাহে প্রযুক্তিভিত্তিক সমাধানের মাধ্যমে জীবনযাত্রা সচল রেখেছে। করোনার প্রকোপ রোধে অ্যাপটি সময়ের বিবেচনায় হতে পারে দারুণ সমাধান।

আইসিটি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলম বলেন, আইসিটি বিভাগ ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের শুরু থেকেই বেসরকারি খাতকে সঙ্গে নিয়ে দুর্যোগ, মহামারিসহ বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে তথ্যপ্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারে গুরুত্বারোপ করেছে। করোনা ট্রেসার বিডি অ্যাপটি সরকারি-বেসরকারি যৌথ উদ্যোগের দৃষ্টান্ত।

‘সহজ’ প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা সম্পাদক মালিহা কাদির বলেন, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যেকোনো অ্যাপ ব্যবহারকারী কোভিড-১৯ পজিটিভ শনাক্ত হলে তার কাছাকাছি আসা অন্য অ্যাপ ব্যবহারকারীদের স্বয়ংক্রিয়ভাবে সম্ভাব্য ঝুঁকি ও করণীয় সম্পর্কে জানিয়ে দেবে।

আইসিটি বিভাগের উদ্যোগে অ্যাপটি তৈরিতে কাজ করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, আইইডিসিআর, এটুআই, এসডিএমজিএ এবং সহজ। অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে অ্যাপটি তৈরিতে কারিগরি সহায়তা দিয়েছে দেশের অন্যতম টেক স্টার্টআপ সহজ লিমিটেড।

একটি উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে