বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ১০ জন মারা গেছেন। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা ১২০ জনে দাঁড়ালো। এছাড়া নতুন ৩৯০ জনের শরীরে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে মোট ৩ হাজার ৭৭২ জনের শরীরে শনাক্ত হলো প্রাণঘাতি এই ভাইরাস।

বুধবার দুপুরে নিয়মিত অনলাইন ব্রিফিংয়ে এ সব তথ্য উপস্থাপন করেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি আরও জানান, মৃতদের মধ্যে ৭ জন পুরুষ ও ৩ জন নারী। এদের মধ্যে ৭ জন ঢাকার এবং বাকিরা ময়মনসিংহ, নারায়ণগঞ্জ ও টাঙ্গাইলের অধিবাসী ছিলেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত ১০ জনের বয়সসীমা:

  • ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সী: ২ জন।
  • ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী: ৩ জন।
  • ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী: ২ জন।
  • ৬০-এর চেয়ে বেশি বয়সী: ৩ জন।

অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন আরও ৫ জন। এ নিয়ে দেশে মোট ৯২ জন সুস্থ হয়ে উঠছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ হাজার ৫২টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আগের সংগৃহীত নমুনাসহ মোট পরীক্ষা করা হয়েছে ৩ হাজার ৯৬টি।

দেশের সার্বিক অবস্থা তুলে ধরে তিনি আরও জানান, নারায়ণগঞ্জে মোট ৪৯৯ জনের মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে ২৬৪ জনই সিটি করপোরেশন এলাকার। মৃত্যু হয়েছে ৩৫ জনের এবং সুস্থ হয়েছেন ১৬ জন। এ জেলার পরই রয়েছে গাজীপুর, কিশোরগঞ্জ ও নরসিংদীর অবস্থান।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক আরও জানান, এ পর্যন্ত সারা দেশের মোট ৫৫টি জেলায় করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে শতকরা ৭৩ ভাগই ঢাকা বিভাগের বাসিন্দা।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ১৫০ জন আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে আইসোলেশনে নেওয়া হলো মোট ৯০০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১৫ জনসহ মোট আইসোলেশন মুক্ত হয়েছেন ৫৯৪ জন।

করোনাভাইরাস সংক্রান্ত যেকোনো তথ্যের জন্য সরকার ইতোমধ্যেই একটি বিশেষ ওয়েবসাইট (www.corona.gov.bd) চালু করেছে।

দেশে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত প্রথম রোগী শনাক্ত হয় ৮ মার্চ। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে প্রথম মৃত্যু হয় ১৮ মার্চ।

এক নজরে দেশের করোনাচিত্র:

  • আক্রান্ত হয়েছেন:  ৩ হাজার ৭৭২ জন।
  • সুস্থ হয়ে উঠেছেন: ৯২ জন।
  • মারা গেছেন: ১২০ জন।

এদিকে, বুধবার বাংলাদেশ সময় বেলা ২টা ২০ মিনিট পর্যন্ত বৈশ্বিক এ মহামারিতে সারা পৃথিবীতে ২৫ লাখ ৬৫ হাজার ৫৫১ জন মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে প্রায় ৬ লাখ ৯৬ হাজার ৮০৭ জন সুস্থ হয়ে উঠলেও প্রাণ গেছে ১ লাখ ৭৭ হাজার ৭৮০ জনের।

সবচেয়ে বেশি প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যেসব দেশে:

  • যুক্তরাষ্ট্র: ৪৫ হাজার ৩৪৩ জন।
  • ইতালি: ২৪ হাজার ৬৪৮ জন।
  • স্পেন: ২১ হাজার ২৮২ জন।
  • ফ্রান্স: ২০ হাজার ৭৯৬ জন।
  • যুক্তরাজ্য: ১৭ হাজার ৩৩৭ জন।
  • বেলজিয়াম: ৫ হাজার ৯৯৮ জন।
  • ইরান: ৫ হাজার ২৯৭ জন।
  • জার্মানি: ৫ হাজার ৮৬ জন।
  • চীন: ৪ হাজার ৬৩২ জন।
  • নেদারল্যান্ডস: ৩ হাজার ৯১৬ জন।

একটি উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে